ডিপ্লোমা শেষ করার পর কি কি পেপারস নিতে হয় ক্যাম্পাস/বোর্ড থেকে ?

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এ অষ্টম পর্বের রেজাল্ট পাবলিশ হবার পর অনেকের ই কনফিউশন দেখা দেয়, সে কি ধরনের পেপারস ক্যাম্পাস থেকে কালেক্ট করবে, কিভাবে কালেক্ট করবে এইসব। এই সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য থাকছে এই পোস্টে।

ডিপ্লোমা কোর্স শেষ হবার পর যেসব পেপারস পাওয়া যায়ঃ

১। কোর্স সমাপনী সার্টিফিকেট (Course Complete Certificate)

২। দায়মুক্ত সনদপত্র (Clearance Certificate)

৩। প্রশংসাপত্র

৪। এসএসসির মার্কশীট/ট্রান্সক্রিপ্ট

৫। বোর্ড সার্টিফিকেট/ মূল সনদপত্র

১। কোর্স সমাপনী সার্টিফিকেটঃ এটা ৪ বছরের ডিপ্লোমা কোর্স শেষ হলেই নেয়া যায়। অর্থাৎ অষ্টম পর্বের রেজাল্ট পাবলিশ হবার আগেই চাইলে নেয়া যায় , আবার অষ্টম পর্বের রেজাল্টে রেফার্ড থাকলেও নেয়া যায়। এটা নেয়ার জন্য ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ বরাবরে আবেদন করতে হয়। আবেদনের সাথে অষ্টম পর্বের প্রবেশপত্রের ফটোকপি সংযুক্ত করতে হয়। ঢাকা পলিটেকনিকে নীচতলায় রেজিস্ট্রারের পাশের রুমে ৫ টাকায় আবেদন ফর্ম কিনতে পাওয়া যায়, সেই ফর্ম পূরন করে ডিপার্টমেন্ট প্রধানের স্বাক্ষর এবং লাইব্রেরীর থেকে স্বাক্ষর নিয়ে জমা দিতে হয় রেজিস্ট্রারের পাশের রুমেই। জমা দেয়ার ৩ দিন পর সংগ্রহ করা যায় সেইম জায়গা থেকেই। পোস্টের শেষে আবেদন পত্রের একটা নমুনা দেয়া আছে।

২। দায়মুক্ত সনদপত্রঃ এই সনদপত্রের মানে হল ক্যাম্পাসের কোন ডিপার্ট্মেন্ট এর সাথে আপনার কোন দেনা পাওনার হিসেব নেই। সব ক্লিয়ার। এই সার্টিফিকেট অবশ্যই কালেক্ট করতে হবে কারন প্রশংসা পত্র নেয়ার ক্ষেত্রে এটার ফটোকপি সংযুক্ত করতে হয়। আরো হয়তো কাজ আছে, আমার আপাতত জানা নেই।

৩। প্রশংসাপত্রঃ ডিপ্লোমা এর ফাইনাল রেজাল্ট পাবলিশ হবার পরে প্রশংসাপত্রের জন্য আবেদন করা যায়। প্রশংসাপত্রের আবেদনের জন্য অবশ্যই রেজাল্ট পাস থাকতে হবে। কোন বিষয়ে রেফার্ড থাকলে নেয়া যাবেনা। প্রশংসাপত্রের আবেদনের জন্যও কোর্স সমাপনী সার্টিফিকেটের মত একই প্রসেসে আবেদন করতে হয়। তবে এক্ষেত্রে দায়মুক্ত সনদ ও অষ্টম পর্বের প্রবেশপত্রের ফটোকপি সংযুক্ত করতে হয়।

৪। এসএসসির ট্রান্সক্রীপ্টঃ পলিটেকনিকে ভর্তির সময় জমা দেয়া এসএসসির মার্কশীট উত্তোলন করার জন্য আলাদা একটি ফর্ম পাওয়া যায়। সেই ফর্ম পূরন করে মূল আইডি কার্ড এবং দায়মুক্ত সনদের ফটোকপি সহ আবেদন করতে হয়। জমা দেয়ার সাথে সাথেই মার্কশীট দিয়ে দেয়া হয় সাধারনত। আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে জিডি করে সেই জিডির কপি সহ আবেদন করতে হয়।

৫। বোর্ড সার্টিফিকেটঃ এটা বোর্ড থেকে ইস্যু হয়ে ক্যাম্পাসে আসতে সাধারণত ৫-৬ মাসের মত সময় লাগে। অষ্টম পর্বের রেজাল্টের ৫-৬ মাস পরে এটা উত্তোলন করা যায়। মূল সনদপত্রের আবেদনের জন্য প্রশংসাপত্রের ফটোকপি, এক কপি সত্যায়িত ছবি এবং সাময়িক সনদপত্রের মূল কপি (উত্তোলন করা হলে) সংযুক্ত করে আবেদন করতে হয় অধ্যক্ষ বরাবর। কোর্স কমপ্লিট এবং প্রশংসাপত্রের আবেদনের মতই ডিপার্ট্মেন্ট প্রধানের সুপারিশ নিয়ে আবেদন জমা দিতে হয়। জমা দেয়ার সাথে সাথেই দিয়ে দেয়া হয় মূল সনদপত্র।

এছাড়াও রেজাল্টের পরপরই চাইলে বোর্ড থেকে নির্দিষ্ট পরিমান ফি জমা দিয়ে সাময়িক সনদপত্র উত্তোলন করা যায়। যেটি পরবর্তীতে মূল সনদপত্র নেয়ার সময় আবার জমা দিতে হয়।

শেয়ার দিয়ে পাশে থাকবেন!Share on Facebook1

লেখাটি পড়ে আপনার অনুভূতি কী? 🙂🙂